সবচেয়ে কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে ভারতীয় গণতন্ত্র, অভিযোগ সোনিয়ার

ভারতে সংসদীয় গণতন্ত্র সবচেয়ে জটিল সময় পার করছে। রবিবার দলের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদকদের সঙ্গে বৈঠকে কংগ্রেসের অন্তর্বর্তীকালীন সভাপতি সোনিয়া গান্ধী এই দাবি করেছেন। সোনিয়া দাবি করেছেন যে মোদী সরকারের অদক্ষতা পুরো দেশকে বিপদের অতলে ডুবিয়ে দিয়েছে।এই বৈঠকে কংগ্রেস রাষ্ট্রপতি কৃষি আইন, করোনার পরিস্থিতি, অর্থনীতি ও গণতন্ত্রের বিষয়ে কেন্দ্রকে তীব্র আক্রমণ করেন।

কৃষি বিলের কারণে আজ কয়েক লক্ষ লক্ষ কৃষকের জীবন বিপদে রয়েছে। সরকার কর্পোরেশনগুলিতে কৃষকদের স্বার্থের প্রতিশ্রুতি দিতে চায়। কৌশলগতভাবে, তারা কংগ্রেস আমলে সংঘটিত সবুজ বিপ্লবকে দমন করার চেষ্টা করছে। সোনিয়া নতুন কৃষি আইন এই সুরেই কেন্দ্রকে বিঁধেছেন। কংগ্রেসের নতুন সাধারণ সম্পাদক এবং বিভিন্ন রাজ্যের দায়িত্বে থাকা নেতাদের কাছে আগামি দিনের কৌশল ব্যাখ্যা করার জন্য রবিবার সোনিয়া একটি সভা ডেকেছিলেন।আর আগামী দিনে কৃষি আইনই যে কংগ্রেসের প্রচারের অন্যতম হাতিয়ার হতে চলেছে, সেটা ভালমতোই বুঝিয়ে দিয়েছেন তিনি। কংগ্রেস সভানেত্রীকে বলতে শোনা গিয়েছে,”ক্ষেতমজুর, দিনমজুর, ছোট প্রান্তিক কৃষকদের জীবনে দুর্দিন ডেকে আনবে এই কৃষি আইন।”

কংগ্রেস সভাপতি বলেছিলেন, ‘মোদী সরকারের অদক্ষতার কারণে আজ দেশটি ভেঙে যাওয়ার পথে। প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন যে ২১ দিনের মধ্যে করোনার অবস্থার উন্নতি হবে। তা হয়নি। বিপরীতে, অর্থনীতি তলানি তে নেমেছে। বেকারদের জন্য নতুন কোন কর্মসংস্থানের সুযোগ নেই। তবে, কোভিডের কারনে ১৪ কোটি মানুষ তাদের চাকরি হারিয়েছে। সোনিয়া দাবি করেছে যে কেন্দ্র কেবল আর্থিক প্যাকেজের নামে চমক দিয়েছে।

কংগ্রেস সভাপতিও হাতরাশের ঘটনাকে হাতিয়ার হিসাবে ব্যবহার করে দেশে দলিতদের উপর অত্যাচারের বিরুদ্ধে কথা বলেছেন। তিনি বলেছিলেন, কখনও ধর্মের নামে আবার কখনও বর্ণের নামে দেশ বিভক্ত হচ্ছে। এই সরকারের আমলে দলিত আদিবাসীদের উপর অত্যাচারের মাত্রা ছাড়িয়ে গেছে। বিজেপি শাসিত রাজ্যে জঙ্গলরাজ শাসন চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here